ভুল চিকিৎসায় মূমূর্ষ প্রসূতি দুই চিকিৎসকের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ

273

হুমায়ুন কবির সুমন, সিরাজগঞ্জ : সিরাজগঞ্জে ভুল চিকিৎসায় কামনা খাতুন (১৯) নামে এক প্রসূতি মৃত্যুরসাথে পাঞ্জা লড়ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ব্যাপারে দুই চিকিৎসককে দায়ী করে তাদের বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগদায়ের করা হয়েছে।মঙ্গলবার (৩ সেপ্টেম্বর) প্রসূতির বাবা মো.আবু কালাম বাদী হয়ে ডা. কমল কান্তিদাস ও ডা. আব্দুর রশিদকে দায়ী করেসিরাজগঞ্জ সদর থানায় অভিযোগটিদায়ের করেন।

লিখিত অভিযোগে বাদী মো. আবু কালামউল্লেখ করেন, তার গর্ভবতী মেয়ে কামনাখাতুনের প্রসব ব্যাথা গত ২৫ জুন শহরেরআরাফাত হাসপাতালে নেয়া হয়ে। পরদিন২৬ জুন ডা. কমলকান্তি অজ্ঞান করার পরডা. আব্দুর রশিদ সিজার অপারেশনেরমাধ্যমে সন্তান প্রসব করে। এরপর থেকেইকামনা খাতুন অসুস্থ্য হয়ে পরে। তিনদিনপর বাড়ি নিয়ে এলে আরও বেশি অসুস্থ্যহয়ে পড়ে সে। পরবর্তীতে ডা. রশিদরোগীকে মেডিসিন বিশেষজ্ঞের কাছেরেফার্ড করেন। মেডিসিন বিভাগেরচিকিৎসক ডা. সাজ্জাদ মাসুদের কাছেনেয়া হয়।

অবস্থার অবনতি হওয়ায় তিনিবগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেলকলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করেন।শজিমেকে চিকিৎসা শেষে সিরাজগঞ্জ ২৫০শয্যা বিশিষ্ট বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছামুজিব জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করাহয়। সেখানে চিকিৎসার পর কিছুটা সুস্থ্যহয়ে উঠলে বাড়ি নিয়ে আসা হয়। কিছুদিনপর আবারও অসুস্থ্য হয়ে পরে কামনাখাতুন। মূমূর্ষ অবস্থায় তাকে গত ২৩আগস্ট কমিউনিটি হাসপাতালে ভর্তি করাহয়। বর্তমানে এ হাসাপাতালেই তারচিকিৎসা চলছে।

ডা. কমল কান্তি দাস ও ডা. আব্দুররশিদের ভুল চিকিৎসাতেই প্রসুতি কামনাঅসুস্থ্য হয়েছে এমন অভিযোগ এনে তাদেরবিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়ার দাবীজানিয়েছেন বাদী আবু কালাম।এ বিষয়ে অভিযুক্ত চিকিৎসক ও আরাফাতহাসপাতালের পরিচালক ডা. আব্দুর রশিদবলেন, অপারেশনের মাধ্যমে বাচ্চা প্রসবেরপর ওই রোগী আমাদের সাথে কোনযোগাযোগ করেনি। বর্তমানে রোগী কিঅবস্থায় রয়েছে বিষয়টি আমাদের জানানেই।সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি)মোহাম্মদ দাউদ ভুল চিকিৎসার বিষয়ে দুইডাক্তারের বিরুদ্ধে থানায় একটি লিখিতঅভিযোগ করা হয়েছে। বিষয়টি খতিয়েদেখা হচ্ছে।