পুরাতন ল্যাপটপ কেনার আগে কি কি দেখবেন ও করণীয়

পুরাতন ল্যাপটপ কেনার আগে যা দেখবেন

10

আপনি কি পুরাতন ল্যাপটপ কেনার আগে করনীয় বিষয় গুলো জানতে চান? তাহলে ধারাবাহিক ভাবে আমাদের আজকের এই আর্টকেল টি পড়তে থাকুন। আর জেনে নিন পুরাতন ল্যাপটপ কেনার আগে করনীয় যে বিষয় গুলো রয়েছে সে সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য। আপনি ১০-১৩ হাজার টাকার মধ্যে খুব ভালো কনফিগারেশনের সেকেন্ড হ্যান্ড ল্যাপটপ পেয়ে যাবেন। তবে পুরাতন ল্যাপটপ বা কম্পিউটার কিন্তু সকলের জন্য নয়। আর সেকেন্ড হ্যান্ড ল্যাপটপ কিনলে যে, সব সব সময় ভালো হবে এমনটা নয়। অনেকে দেখা যায় যে পুরাতন ল্যাপটপ সমস্যার কারণে বিক্রি করে দেয়। অনেকে আবার নতুন আপডেট ল্যাপটপ কেনার জন্য বিক্রি করে। কারন মার্কেট বা বাজারে বিভিন্ন কোম্পানির বিভিন্ন মডেলের কম দামে পুরাতন ল্যাপটপ পাওয়া যায়। তাই কম দামে পুরাতন ল্যাপটপ কেনার আগে আপনার যে, করনীয় বিষয় গুলো আছে। সে বিষয় গুলো সম্পর্কে আপনাকে ভালো করে জানতে হবে। কেননা আপনার যদি সেই বিষয় গুলো সম্পর্কে ধারণা না থাকে।

তাহলে হয়ত আপনি ঠকতে পারেন। তাই আজ আমি আপনাদের কে পুরাতন ল্যাপটপের দাম, কেনার আগে করনীয় যে, পরীক্ষা গুলো আছে সে সম্পর্কে বিস্তারিত জানিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করবো।

পুরাতন ল্যাপটপ কেনার আগে যা যা করনীয়

আমরা যে কাজের জন্য পুরাতন ল্যাপটপ কিনি না কেন, তা যেন ভালো হয় সে ব্যাপারে অবশ্যই আমাদের খেয়াল রাখতে হবে। আর সব সময় পুরাতন জিনিস খারাপ হবে এমনটা নয়। অনেক সময় ভালোও হতে পারে। তবে পরিচিত কাছের লোকদের কাছ থেকে নিতে পারলে সবচেয়ে ভালো হয়। আমাদের দেশে বাইরের দেশ থেকে সেকেন্ড হ্যান্ড ল্যাপটপ এসে থাকে। বিশেষ করে উন্নত দেশের মানুষ নতুন ল্যাপটপ কিনে কিছু দিন ব্যবহার করে আবার বিক্রি করে দেয়। অনেক সময় হালকা সমস্যা কারনে বিক্রি করে। কেননা, বাহিরের দেশে পুরাতন ল্যাপটপের দাম খুব কম। আর তখন কম দামে পুরাতন ল্যাপটপ গুলো আমাদের দেশে এনে সার্ভিসিং করে আমাদের দেশে বিক্রি করে। বর্তমানে অনেকেই নতুন ল্যাপটপ কেনার পাশাপাশি কম দামে পুরাতন ল্যাপটপ কিনছে। তবে পুরাতন ল্যাপটপ কেনার আগে করনীয় বিষয় গুলো অবশ্যই আপনাকে ভালোভাবে জেনে নিতে হবে।

পুরাতন ল্যাপটপ এর ব্যাটারি

সেকেন্ড হ্যান্ড ল্যাপটপ বা পুরাতন ল্যাপটপ কেনার আগে করনীয় হচ্ছে, ব্যাটারি লাইফ কেমন। কারন, ল্যাপটপের জন্য ব্যাটারি লাইফ খুবই গুরুত্বপূর্ণ। সাধারণত নতুন ল্যাপটপ কিনতে গেলেও ব্যাটারির সার্ভিস কেমন হবে তা নিয়ে চিন্তা হয়। আর আপনি যখন পুরাতন ল্যাপটপ কিনতে যাবেন। তখন আপনি অবশ্যই ব্যাটারির কন্ডিশন ভালো করে চেক করে দেখবেন। আমি বলবো, কমপক্ষে দুই ঘন্টা ব্যাটারি ব্যাকআপ দেয় এমন ল্যাপটপ কেনা ভালো। যদিও পুরাতন ল্যাপটপের দাম কম হওয়ার কারনে ব্যাটারি ব্যাকআপ ভালো পাওয়া অনেক ভাগ্যের ব্যাপার। তাই আমি মনেকরি, ব্যাটারি বিষয় টি গুরুত্বের সাথে দেখতে হবে।

পুরাতন ল্যাপটপ এর কীবোর্ড ও টার্চ প্যাড

কীবোর্ড ও টার্চ প্যাড এই দুই টি জিনিস ল্যাপটপের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কেননা, আলাদা করে এই দুই টি জিনিস ব্যবহার করা অসম্ভব। তারপরেও আপনাকে এই ঝুঁকি নেওয়া ঠিক হবে না। তাই পুরাতন ল্যাপটপ কেনার আগে করনীয় হচ্ছে আপনাকে কীবোর্ড ও টার্চ প্যাড ঠিকঠাক কাজ করে কি না তা দেখে নিতে হবে। কারণ অনেক সময় কীবোর্ডের (key) গুলো কাজ করে না। সে জন্য আপনাকে প্রতিটি (key) ভালো করে চেক করে দেখতে হবে।

পুরাতন ল্যাপটপ এর ডিসপ্লে

একটি ল্যাপটপের ডিসপ্লে খুবই গুরুত্বপূর্ন বিষয়। কেননা, অনেক সময় পুরাতন ল্যাপটপ এর ডিসপ্লের সমস্যা থাকে। যার কারনে বাজারে পুরাতন ল্যাপটপের দাম কম দিয়ে বিক্রি করে দেয়। আর ডিসপ্লেতে কোন দাগ অথবা স্ক্র্যাচ থাকে। তাহলে, আমি বলবো এ রকম ল্যাপটপ না কেনাই ভালো। কারন, যে কোন সময় ডিসপ্লে নষ্ট হতে পারে। আর পর্দায় থাকা স্পট সময়ের সাথে সাথে বাড়তে থাকে। যা এক সময় পুরো ডিসপ্লে নষ্ট করে দেবে। তাই আমি বলবো, কম দামে পুরাতন ল্যাপটপ কেনার আগে করনীয় ডিসপ্লে ভালোভাবে যাচাই বাছাই করে দেখা।

পুরাতন ল্যাপটপ কেনার আগে কি কি দেখবেন ও করণীয় পুরাতুন ল্যাপটপের দাম সেকেন্ড হ্যান্ড ল্যাপটপ

পুরাতন ল্যাপটপ এর পোর্টস

ল্যাপটপে অনেক গুলো পোর্ট থাকে। যেমন চার্জার পোর্ট, ইউএসবি পোর্ট, হেডফোন পোর্ট, ভিজিএ এবং এইচডিএমআই পোর্ট সহ আরও কিছু অ্যাডিশনাল পোর্ট থাকে। অনেক সময় এই পোর্ট গুলো কাজ করে না। কারণ সময়ের সাথে সাথে এই পোর্ট গুলো নষ্ট হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। তাই আমি মনেকরি, পুরাতন ল্যাপটপ কেনার সময় প্রতিটি পোর্ট ভালোভাবে চেক করে নিতে হবে।

পুরাতন ল্যাপটপ এর কনফিগারেশন

কম্পিউটার ডেক্সটপ পিসি যে কনফিগারেশন পারফরমেন্স দেয়। সেই তুলনায় কনফিগারেশনে ল্যাপটপ অপেক্ষাকৃত কম পারফরমেন্স দেয়। এর কারন হচ্ছে ল্যাপটপ এবং ডেক্সটপের মধ্যে গঠনগত পার্থক্য আছে। তাই পুরাতন ল্যাপটপ কেনার আগে করনীয় আগে এর কনফিগারেশন ভালো করে চেক করে নেওয়া। আর আপনি নিজে যদি চেক করতে না পারেন বা তেমন এক্সপার্ট না হন। তাহলে অবশ্যই কোন এক্সপার্টকে কনফিগারেশন দেখাবেন। এতে আপনার ঠকে যাওয়ার সম্ভাবনা যেমন কম হবে তেমনি ভালো মানের সেকেন্ড হ্যান্ড ল্যাপটপ বা পুরাতন ল্যাপটপের দাম কম দিয়ে কিনতে পারবেন।

পুরাতন ল্যাপটপ এর সার্ভিসিং হিস্টোরি

আমরা সবাই পুরাতন স্মার্টফোন কেনার আগে যাচাই করি ফোনটি সার্ভিসিং করা হয়েছে নাকি, তা চেক করি। এর থেকে ধারণা করা যায় ফোনের মধ্যে কোন ধরনের সমস্যা আছে কি না। কেননা, অনেক সময় ওরিজিনাল পার্টস সরিয়ে ডুপ্লিকেট পার্টস অ্যাড করা থাকে। তেমনি, ল্যাপটপের ব্যাপারেও এই কন্ডিশন একই ভাবে অ্যাপ্লাই করা হয়। তাই যখন পুরাতন ল্যাপটপের দাম কম দিয়ে কিনতে যাবেন। তখন আপনি দেখে নিবেন তা সার্ভিসিং সেন্টারে গিয়েছে নাকি। আর যদি গিয়ে থাকে তাহলে কতবার সার্ভিসিং হয়েছে সে সম্পর্কে ধারণা নিতে পারবেন। এই বিষয় টি আপনাকে খেয়াল রাখতে হবে।

পুরাতন ল্যাপটপ এর হার্ডওয়্যার আপগ্রেড সুবিধা

সেকেন্ড হ্যান্ড ল্যাপটপ বা পুরাতন ল্যাপটপ কেনার আগে করনীয় হচ্ছে এর হার্ডওয়্যার আপগ্রেড সুবিধা আছে নাকি তা ভালো করে চেক করতে হবে। বিশেষ করে র‍্যাম এবং স্টোরেজ পার্টস আপগ্রেড করার সুবিধাযুক্ত ল্যাপটপ কেনার চেষ্টা করবেন। এতে ল্যাপটপ কেনার পর আপনি নিজের চাহিদামত হার্ডওয়্যার আপগ্রেড করে নিতে পারবেন। যত লেটেস্ট হার্ডওয়্যার ব্যবহার করবেন আপনার ডিভাইস তত ফাস্ট এবং স্মুথ ভাবে কাজ করবে। বিশেষ করে এসএসডি ডিভাইস আপনার ল্যাপটপের পারফরমেন্স দ্বিগুণ বাড়িয়ে দেবে।

পুরাতন ল্যাপটপ এর স্পীকার

স্পীকার ল্যাপটপের একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ। আর এই গুরুত্বপূর্ণ অংশ স্পীকারের মাধ্যমে আমরা সকলে গান শুনে থাকি। আর পুরাতন ল্যাপটপ এর ক্ষেত্রে স্পীকারের একটু বেশি সমস্যা হয়ে থাকে। যার কারনে অনেক সময় পুরাতন ল্যাপটপের দাম কম করে বিক্রি করে দেয়। এমন কি পুরাতন ল্যাপটপ এর স্পীকার পরিবর্তিত হয়ে থাকে। শব্দ ভালো ভাবে শোনা যায় না এছাড়া নানা ধরনের সমস্যা দেখা দেয়। তাই আমি মনেকরি কম দামে পুরাতন ল্যাপটপ কেনার আগে স্পীকার ভালো করে চেক করে নিতে হবে।

পুরাতন ল্যাপটপ ওভার হিট হচ্ছে কি না

অনেক সময় সেকেন্ড হ্যান্ড ল্যাপটপ বা পুরাতন ল্যাপটপ কম দামে বিক্রি হয়ে থাকে। তার কারন, অতিরিক্ত ওভার হিটের কারনে। তাই আপনাকে খেয়াল রাখতে হবে পুরাতন ল্যাপটপ ওভার হিট হচ্ছে কি না সে দিকে খেয়াল রাখতে হবে। যদি দেখেন ল্যাপটপ ওভার হিট হচ্ছে তাহলে বুঝতে হবে কোন সমস্যা আছে। আর এ সময় ভারি সফটওয়্যার চালু করতে হবে। দেখতে হবে ল্যাপটপ বন্ধ হয়ে যাচ্ছে কি না। যদি দেখেন যে, এর কারনে ল্যাপটপ হ্যাংক বা রিস্টার নিচ্ছে বা বন্ধ হচ্ছে, তাহলে আমি বলবো সেটি নেওয়া যাবে না। সে জন্য আপনি আবার মনে করছেন ল্যাপটপ হিট হয়না, মনে রাখবেন হিট যেন স্বাভাবিক হয়।

পুরাতন ল্যাপটপ এর ডিজাইন

আপনি যে পুরাতন ল্যাপটপ কিনবেন সেটার ডিজাইন কেমন আছে সেটা দেখে নেওয়া ভালো। কারণ আপনি একটি জিনিস কিনবেন তা যদি আপনার পছন্দ না হয় তাহলে সেটি কেনার দরকার নেই। আর আপনার যদি ডিজাইন ভালো লাগে তাহলে নিতে পারেন। ডিজাইনের ক্ষেত্রেও আপনাকে দেখতে হবে।

উপরের উল্লেখিত বিষয় গুলো খেয়াল করে পুরাতন ল্যাপটপ কিনলে হয়তো আপনি একটা ভালো ল্যাপটপ কিনতে পারবেন। তবে যেসব উন্নত দেশ থেকে পুরাতন ল্যাপটপ আসে সেগুলো অধিকাংশ ভালো থাকে। তাই পুরাতন ল্যাপটপের দাম জেনে বা কেনার আগে করনীয় যে বিষয় গুলো আছে তা দেখে শুনে নিলে ভালো ল্যাপটপ পাওয়া যেতে পারে।

 

আপনি আরো পড়তে পারেন, নতুন ল্যাপটপ কেনার পর করণীয় কি কি – জেনে নিন। 

Leave A Reply

Your email address will not be published.